ইন্টারনেটের অপব্যবহার

প্রকাশের সময় : 2019-06-13 17:51:13 | প্রকাশক : Administration

জীবনের প্রয়োজনেই ছুটে চলা প্রতিনিয়ত। এই চলার মাঝেই দেখা হয় কত প্রকৃতি, কত জন, কত সভ্যতা, কত সংস্কৃতির পরিবর্তন। জানার আগ্রহ না থাকলেও অনেক কিছুই সামনে এসে যায় প্রকৃতির নিয়মে। গ্রাম, শহর, শহরতলী একেক এলাকার মানুষের জীবন ব্যবস্থা একেক রকম। তবে পরিবর্তনের ধারায় মানুষ প্রযুক্তির ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে অনেকটা।

কিছু মানুষ আছে যারা এখনও সেকেলে ধারায় চলার চেষ্টা করে তবে অধিকাংশই প্রযুক্তিনির্ভর। আর এই বিজ্ঞানের আশীর্বাদে প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় মুখোশ পরাটা খুব সহজ ব্যাপার। মিথ্যা, প্রতারণা, প্রবঞ্চনা, নোংরামি অহরহ হচ্ছে। বিবেকের কাছে কোন প্রকার দায়বদ্ধতা মানুষের আছে, এটা এখন আর মনে হয় না।

যেমন পথে ঘাটে প্রায় ফোনালাপ শোনা যায়- ভাই আমি তো কমলাপুর আছি, অথচ আছে নারায়ণগঞ্জে। একদিন রিক্সায় যাচ্ছি। পাশাপাশি আরেক রিক্সায় এক ভদ্রলোক ফোনে বলছেন, ভাই আমি রাজশাহী আছি, আসতে দুদিন লাগবে, অথচ আছেন পঞ্চবটি ও চাষাঢ়ার মাঝামাঝি, জামতলায়। মোবাইল ফোন। এই ছোট্ট যন্ত্রটি মানুষের জীবনকে কত সহজ করে তুলেছে। দূর-দূরান্তে, দেশে-বিদেশে এই মোবাইলের মাধ্যমে আমরা প্রয়োজনীয় কথা বলতে পারি।

বর্তমানে সবচেয়ে শক্তিশালী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। এর ভাল দিকও যেমন আছে, মন্দ দিকও তেমন আছে। অনেকে অনেক বছর আগে যোগাযোগ ছিন্ন হওয়া পরিচিত জনদের খুঁজে পাচ্ছেন। পুরনো সম্পর্কগুলো নতুন করে ফিরে পাওয়ার এ দিকটা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। মুহূর্তে ঘটে যাওয়া খবরাখবর ফেসবুকের মাধ্যমে জানা যায়। টিভি চ্যানেল বা পত্রিকায় খবর প্রকাশ হওয়ার আগেই ফেসবুকে সব খবর ছড়িয়ে পড়ে।

তেমনি ভুয়া বিভিন্ন খবরে বিভ্রান্তিরও সৃষ্টি করে। ভুয়া আইডি খুলে সমাজে সম্মানিত বিভিন্ন ব্যক্তির নামে অপপ্রচার চালানো হয়। সুশীল মানুষকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলা হয় নানান ধরনের ছবি দিয়ে। ফেসবুকে অশ্ল−ীল ছবি প্রকাশ করায়, আত্মসম্মান ক্ষুণেœর ভয়ে অনেকের আত্মহত্যার খবরও শোনা গেছে। হতে পারে একটা মানুষ মারা যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মারা গেছে এক বাবার স্বপ্ন, এক মায়ের স্বপ্ন, একটা পরিবারের, এমনকি একটা সমাজের স্বপ্ন।

ব্যক্তিগত ব্যপারে মতানৈক্য হলেই কারও বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়। সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টা চলে। তাই আমাদের সবার উচিত খুব সতর্কতার সঙ্গে, সংযতভাবে ফেসবুকে কিছু লেখা। গীবত নামের মহাপাপের হাত থেকে নিজেদের বাঁচানো। প্রযুক্তি হোক মানুষের কল্যাণে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হোক সত্য ও সুন্দরের বার্তাবাহক। নূরজাহান নীরা, নারায়ণগঞ্জ

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com