চাঁদের মাটিতেই চারা ফুটে গাছ!

প্রকাশের সময় : 2022-06-08 16:27:43 | প্রকাশক : Administration
চাঁদের মাটিতেই চারা ফুটে গাছ!

কালে কালে কি চাঁদের মাটিতে বাস করবে মানুষ? বিজ্ঞানের অগ্রগতির যুগে মোটেই অসম্ভব নয়।

তবে সমস্যা আছে নানাবিধ। অক্সিজেনের অভাব তো আছেই, আছে চাষাবাদের সমস্যা। চাঁদের মাটি অনুর্বর বললেও কম বলা হবে। কিন্তু কামাল করেছেন ফ্লোরিডা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। চাঁদের মাটিতেই গাছের চারা পুঁতেছেন এবং তা দিব্যি বেঁচে আছে, বড় হচ্ছে।

বিজ্ঞানের পরিভাষায় চাঁদের মাটিকে বলা হয় ‘রেগোলিথ’। ৫০ বছরেরও আগে অ্যাপোলো মিশনের সময় আনা হয়েছিল রেগোলিথ। সে সময় কিছু করা না গেলেও আজ অসাধ্য সাধন করেছেন বিজ্ঞানীরা। বেশ বলিষ্ঠ অ্যারাবিডোপসিস থাইলানা গাছ বড় করেছেন পুষ্টিহীন চাঁদের মাটিতে। আগাছা জাতীয় এই গাছ আফ্রিকা এবং ইউরেশিয়া অঞ্চল জুড়ে দেখা যায়। ব্রকোলি, ফুলকপির মতো সবজির খুবই ‘নিকটাত্মীয়’এই উদ্ভিদ।

নাসার তরফেও এই সাফল্য নিয়ে উচ্ছাস প্রকাশ করা হয়েছে। নাসা আধিকারিক বিল নেলসন জানিয়েছেন, ‘দীর্ঘমেয়াদি হিউম্যান এক্সপ্লোরেশনের লক্ষ্যের জন্য এই গবেষণা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ভবিষ্যতে মহাকাশচারীদের খাদ্যের জোগানের জন্য চাঁদ এবং মঙ্গল পাওয়া উৎস ব্যবহার করতে হবে।’কিভাবে হল এই অসাধ্য সাধন। গবেষকরা জানিয়েছেন, প্রতিটি চারাগাছের জন্য ১ গ্রাম করে রেগোলিথ বরাদ্দ করা হয়েছিল। প্রথমে জল দেওয়া হয় এবং তারপর বীজ পোঁতা হয়। এর পর একটি পরিষ্কার ঘরে টেরারিয়াম বাক্সে রাখা হয়। প্রয়োগ করা হয় পুষ্টিগুণে ভরপুর সলিউশন। অ্যানা-লিসা পল নামে হর্টিকালচার বিজ্ঞানের প্রফেসর উচ্ছাসের সঙ্গে বলছেন, দু’দিন পরেই অঙ্কুরোদগম হল। প্রত্যেকটা থেকেই অঙ্কুর বেরল। কতটা এক্সাইটেড হয়ে পড়েছিলাম আমরা তা বলে বোঝাতে পারব না।’বিজ্ঞানীদের আশা, এই সাফল্যের পর একদিন চাঁদের মাটিতে শস্য উৎপাদন করা যাবে। - সূত্র: অনলাইন

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com