যশোর থেকে ঢাকায় লাগবে ৩ ঘণ্টা

প্রকাশের সময় : 2019-10-09 18:19:35 | প্রকাশক : Administration

সিমেক ডেস্কঃ যশোর-নড়াইলের মানুষের দীর্ঘদিনের একটি স্বপ্ন বাস্তবায়িত হচ্ছে। তাদের স্বপ্ন ছিল অল্প সময়ে ট্রেনে করে পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকায় যাওয়া। সেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে। পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের আওতায় ঢাকা-নড়াইল-যশোর রেল লাইনের কাজ শুরু হয়েছে। নড়াইলে প্রায় ২২ কিলোমিটার এলাকায় বালু ভরাট করে রোলার দিয়ে সমান করা এবং চারটি রেল সেতু নির্মাণের প্রাথমিক কাজ শুরু হয়েছে। এই প্রকল্পের কাজ শেষ হলে ট্রেনে ৩ ঘণ্টায় যশোর থেকে ঢাকায় যাওয়া যাবে। স্বপ্নের এই রেল লাইনের কাজ দেখতে প্রতিদিন আশপাশের গ্রামের অনেক মানুষ ভিড় করছেন।

ঢাকা থেকে নয়টি জেলার ওপর দিয়ে যশোর পর্যন্ত  ১শ’ ৭২ কিলোমিটার ডুয়েল গেজ (ব্রডগেজ ও মিটারগেজ) আধুনিক এ রেল লাইনটি নির্মাণ কাজ করছে চীনের চায়না রেলওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ লিমিটেড। এ রেল লাইনটি ঢাকা-মাওয়া -কালনা-নড়াইল হয়ে যশোরের রূপদিয়া ও সিঙ্গিয়া রেল লাইনের সঙ্গে যুক্ত হবে। এ সংযোগস্থল থেকে একটি লাইন রূপদিয়া হয়ে বেনাপোল বন্দরে গিয়ে এবং অপরটি সিঙ্গিয়া-বাণিজ্যিক শহর নওয়াপাড়া হয়ে শিল্পাঞ্চল খুলনায় গিয়ে শেষ হবে। নড়াইল অংশে ২২ কিলোমিটারের মধ্যে লোহাগড়া পৌরসভার নারানদিয়া ও নড়াইল পৌরসভার দুর্গাপুর-ভওয়াখালী এলাকায় দুটি রেল স্টেশন হবে। ঢাকা থেকে লোহাগড়ার রেল স্টেশনের দূরত্ব ১শ’ ২৩ ও দুর্গাপুর-ভওয়াখালী রেল স্টেশনের দূরত্ব ১শ’ ৩৮ কিলোমিটার। ট্রান্স-এশিয়ান রেলওয়ে নেটওয়ার্কের এই উপ রুটটির কাজ ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর শেষ হওয়ার কথা।

নড়াইল অংশে মোট চারটি নদীর ওপর চারটি রেল সেতু নির্মিত হবে। কালনা সেতু থেকে ৮শ’ মিটার উত্তরে মধুমতি নদীর ওপর ১ হাজার ২শ’ ১২ মিটার, লোহাগড়ার বসুপটি এলাকায় নবগঙ্গা নদীর ওপর ১শ’ মিটার, নড়াইল সদরের বরাশোলা এলাকায় চিত্রা নদীর ওপর ১শ’ মিটার এবং তুলারামপুর এলাকায় আফরা নদীর ওপর ১শ’ মিটার রেল সেতু নির্মাণের প্রাথমিক কাজও শুরু হয়েছে।

সড়ক ও রেল সেতু বাস্তবায়ন সংগ্রাম কমিটি নড়াইলের সাবেক আহ্বায়ক শরীফ মুনির হোসেন বলেন, এটি চালু হলে আঞ্চলিক ও জাতীয় যোগাযোগ বৃদ্ধি পাবে। বেনাপোল স্থলবন্দর থেকে ঢাকাসহ অন্যান্য অঞ্চলে আমদানি-রফতানিকৃত পণ্য পরিবহনে সুবিধা পাবেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়া দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২০ জেলার যাতায়াত সহজ এবং সময় বাঁচবে। এক কথায় বৃদ্ধি পাবে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড; পাল্টে যাবে মানুষের জীবনযাত্রার মান। এছাড়াও ঢাকার ওপর চাপ কমবে বলে তিনি মনে করেন।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নড়াইল ক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতু রেল লাইন প্রকল্পের নড়াইল ও যশোর অংশের কাজ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নড়াইল ক্যাম্পের মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ন করা হচ্ছে। রেল লাইনের কাজে নড়াইলবাসীর যথেষ্ট আগ্রহ এবং সহযোগিতা রয়েছে। জোরেশোরে কাজ এগিয়ে চলেছে। পদ্মা সেতু চালুর দিন থেকেই ঢাকা-নড়াইল-যশোর ট্রেন চলাচলের পরিকল্পনা রয়েছে এবং সেভাবেই কাজ চলছে।

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ রফিকুল ইসলাম সুজন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com