সর্বনাশা পরকীয়া; ছারখার হয়ে যাচ্ছে সব

প্রকাশের সময় : 2018-06-10 10:58:36 | প্রকাশক : Admin

শংকর কুমার দেঃ সর্বনাশা পরকীয়া প্রেমের বলি বেড়েই চলছে। মাদক আসক্তির চেয়েও ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে পরকীয়া প্রেমের আসক্তি। হিতাহিত জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়ছে পরকীয়া প্রেমিক-প্রেমিকা। ছারখার হয়ে যাচ্ছে সোনার সংসার। খান খান করে ভেঙ্গে যাচ্ছে রঙিন স্বপ্ন। গত এক মাসেই চাঞ্চল্যকর তিনটি পরকীয়ার ঘটনায় খুন হয়েছেন স্বামী, সন্তান, পিতা।

দেশজুড়ে আলোড়ন তুলেছে রংপুরে স্ত্রী দিপা ভৌমিক ও তার পরকীয়া প্রেমিকের হাতে খুন হওয়া পিপি রথীশ চন্দ্র ভৌমিক বাবু সোনা হত্যাকান্ডের ঘটনাটি। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে নিজ পুত্র সন্তানকে নির্মমভাবে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে মা নামের ডাইনি শেফালী বেগম। খোদ রাজধানী ঢাকাতেই পরকীয়া প্রেমে আসক্ত হয়ে প্রেমিকের পিতাকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করার পর ব্যাগে ভর্তি করে লাশ ফেলে দেয়ার ঘটনা উদঘাটিত হওয়ার পর গ্রেফতার হয়েছে প্রেমিকা কণিকা।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের তদন্ত সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা বলেন, প্রতিবছরই দেশে অনেক পরকীয়া প্রেমের বলির ঘটনা ঘটছে। নৈতিকতার স্খলন ঘটলে মানুষ অনেক ন্যক্কারজনক কাজ করতে পারে। নীতি ও বিবেক ভ্রষ্ট হয়ে নিজের মানবিকতাকে বিসর্জন দিয়ে হয়ে পড়ছে পাষাণ হৃদয়ের মানব। তারই প্রমাণ পরকীয়া প্রেম। নিজের স্বামী বা স্ত্রীর সঙ্গে বৈবাহিক সূত্রে আবদ্ধ থাকা অবস্থায় আরেকটি অনৈতিক প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে যাওয়াটাই আমরা পরকীয়া হিসেবে জানি। তবে এটা অনেকেই জানি না যে শুধু দেশেই নয়, বিশ্ব জুড়ে অসংখ্য মানুষ এই পরকীয়ার ব্যাধিতে আসক্ত। শুধু তাই নয়, অনেকে একাধিক পরকীয়াও একত্রে চালিয়ে যান। আর এই পরকীয়া করার জন্যও বিপরীত লিঙ্গের মন ভোলাতে মানুষ আশ্রয় নিয়ে থাকেন জঘন্য কিছু কৌশলের।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা পরকীয়া প্রেমের বলির বিষয়ে বলেন, যেভাবে পরকীয়া প্রেমের সৃষ্টি হয় তার অনেক ঘটনা বের হয়ে এসেছে তদন্তে। এর মধ্যে নিজের জীবনসঙ্গী ভাল হওয়া সত্ত্বেও তার নামে বদনাম করা, কুৎসা রটানো, সকলের সামনে নানাভাবে তাকে হেয় করার মধ্য দিয়ে পরকীয়া প্রেমের সৃষ্টি হয়। এরপর নিজের জীবনসঙ্গীকে খারাপ প্রমাণ করে সহানুভূতি কুড়ানোটাই মূল কৌশল।

সংসারে স্বামী বা স্ত্রীর অনুপস্থিতি, অশান্তি, দাম্পত্য কলহ, নিজেকে নিঃসঙ্গ ভেবে পরকীয়ায় সমর্পণ। অর্থের জোরে সম্পর্ক কেনা অর্থাৎ টাকা দিয়ে পরকীয়ার সম্পর্ক তৈরি করাও খুব কমন। এক্ষেত্রে পরকীয়তা মানসিক সম্পর্কের চাইতে শারীরিকই হয় বেশি। এমন সম্পর্কে জড়ানো যা খুবই লজ্জাজনক। পরকীয়া এমনিতেই অনৈতিক, কিন্তু পরকীয়ার তাগিদে মানুষ এর চাইতেও অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে যায়। যেমন কাজের মেয়ে বা ড্রাইভারের সঙ্গে প্রেম বা এমন কোন আত্মীয়ের সঙ্গে প্রেম যার সঙ্গে সমাজ প্রেমকে স্বীকৃতি দেয় না।

সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা অনৈতিক কার্যকলাপ যেমন ফেসবুকে বা অন্য সোশ্যাল মিডিয়ার হরেক রকমের বন্ধু তৈরি, তাদের সঙ্গে নানা রকমের মিথ্যাচার ও সম্পর্ক তৈরি, নিজেকে সিঙ্গেল দাবি করা ইত্যাদি আজকাল অহরহ হচ্ছে। বিশেষ করে ফেসবুক পরকীয়া করাকে খুবই সহজ করে দিয়েছে। তালিকায় ফোনও আছে। সংসারে স্বামী বা স্ত্রীর অনুপস্থিতি, অশান্তি, দাম্পত্য কলহ, নিজেকে নিঃসঙ্গ ভেবে পরকীয়ায় সমর্পণ। আসলে পরকীয়ায় সমর্পণের জন্য জীবনসঙ্গীর চোখের আড়ালে সুযোগ বুঝে নিজেকে সিঙ্গেল পরিচয় দিয়েও পরকীয়া করেন অনেক মানুষ। এতে প্রেম করাটা সহজ হয়। একই সঙ্গে জীবন সঙ্গী ও পরকীয়ার সঙ্গী, দু’জনকেই ধোঁকা দেন তারা। নিজের সম্পর্কে মিথ্যা কাহিনী তৈরি করে নিজের অর্থ বিত্ত সম্পর্কে, জীবন সম্পর্কে এমন সব মিথ্যা কাহিনী তৈরি করেন যেন বিপরীত লিঙ্গ খুব আকর্ষণ বোধ করে আর তিনি অন্য কারো জীবন সঙ্গী এটা জানা সত্ত্বেও জৈবিক চাহিদার উন্মাদনার কারণে প্রেমে আগ্রহী হয়ে ওঠে। - সূত্রঃ জনকন্ঠ

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ রফিকুল ইসলাম সুজন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com