পৃথিবীর বৃহত্তম মাটির মসজিদ

প্রকাশের সময় : 2020-12-27 17:22:57 | প্রকাশক : Administration
পৃথিবীর বৃহত্তম মাটির মসজিদ

সিমেক ডেস্কঃ আফ্রিকার একটি অত্যন্ত দরিদ্র একটি দেশ মালি। এখানকার আবহাওয়া অত্যন্ত শুস্ক। গরমকালে এখানকার তাপমাত্রা ৩৫ থেকে ৩৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস হয়ে থাকে। গরম এতটাই তীব্র হয়ে ওঠে যে এখানকার একটি নদী যার নাম “বানি” শুষ্ক হয়ে পানিশূন্য হয়ে ওঠে। এই বানি নদীর পাশেই গড়ে উঠেছে শহর জেনে। মজার ব্যাপার হল জেনে শহরটি সম্পূর্ণরূপে কাঁদা দ্বারা তৈরি। শহরের প্রধান মসজিদ দেখাশুনা করার দায়িত্বে যিনি রয়েছেন তাঁর নাম উসমান। গরমকালে এই মসজিদ দেখাশুনা করাটা খুব কঠিন হয়ে ওঠে। জেনে শহরের এই মসজিদটি পৃথিবীর সবথেকে বড় এবং পুরনো কাঁদায় নির্মিত। শহরের প্রাণকেন্দ্র এই মসজিদটি।

প্রতিবছর বৃষ্টি শুরুর আগেই মসজিদটি কাঁদামাটি দিয়ে নতুন করে প্রলেপ দিয়ে শক্ত করতে হয়। এর জন্য নদীর তলদেশের কাঁদামাটি এবং তুষের মিশ্রণ ব্যাবহার করা হয়ে থাকে। কিভাবে মিশ্রণ তৈরি হবে, কখন মিশ্রণটি ব্যাবহারের উপযুক্ত হয়ে উঠেছে এবং কবে থেকে কাজ শুরু হবে এই সমস্ত কিছুই উসমানের দায়িত্বে। উসমানের নির্দেশ পাওয়ার সাথে সাথে শহরের সবাই উসমানের নির্দেশমত কাজে নেমে পড়ে। মসজিদের এই বিশাল কর্মযজ্ঞে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলারাও সমানভাবে অংশগ্রহন করে থাকে। মসজিদের দেয়ালের ভিতরের পাম গাছের গুড়ি প্লাস্টার মিস্ত্রিদের জন্য মইয়ের ভূমিকা পালন করে থাকে। প্লাস্টার দেয়া শেষ হলে শিশুরা মেতে ওঠে কাঁদা ছোড়াছুড়ি খেলায়।

জেনের এই কাঁদামাটির মসজিদের ইতিহাস প্রায় ৭০০ বছরের পুরনো। মসজিদটি এই শহরের মানুষের কাছে একটি অনন্য ধর্মীয় তীর্থস্থল।- সূত্রঃ অনলাইন

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com