৯৬ বছর বয়সে প্রথম পরীক্ষা

প্রকাশের সময় : 2018-08-29 21:07:19 | প্রকাশক : Admin
�৯৬ বছর বয়সে প্রথম পরীক্ষা

সিমেক ডেস্কঃ কথায় বলে শেখার কোনও বয়স হয় না। তবে এবার কথায় নয়, কাজে করে দেখালেন ভারতের আলাপ্পুজাহারের বাসিন্দা কাত্যায়নী আম্মা। ৯৬ বছর বয়সে কেরেলার সর্বশিক্ষা মিশনে চতুর্থ শ্রেণীতে ওঠার পরীক্ষায় সফল ভাবে উত্তীর্ণ হলেন তিনি।

জানা গেছে, আকসারলাক্সম প্রকল্পের অন্তর্গত এই সর্বশিক্ষা মিশনে কাত্যায়নী আম্মাই সবচেয়ে প্রবীন পড়ুয়া। শুধু তাই নয়, পড়ার পরীক্ষায় একেবারে পূর্ণ নম্বর পেয়ে রীতিমতো নজির গড়েছেন তিনি।

আম্মা ৯৬ বছর বয়সে প্রথমবার পরীক্ষায় বসেন। ৪৫ জন প্রবীন পরীক্ষার্থীর মধ্যে কাত্যায়নী আম্মা ছিলেন প্রবীনতম। মোট ১০০ নম্বরের পরীক্ষায় ৩০ নম্বর ছিল পড়ার জন্য, ৪০ মালয়ালম ভাষায় লেখার জন্য ও ৩০ নম্বর গণিতের জন্য। লিখিত পরীক্ষার ফলাফল এখনও প্রকাশিত না হলেও আম্মা আশা করছেন, এবারও তিনি সফল হবেন।

তবে এত কিছুর মধ্যেও আম্মা যেন একটু হলেও অখুশি। রীতিমত ক্লাসের প্রথম বালিকার সুরে বলছেন, "এই প্রশ্নপত্রের জন্য এত কিছু পড়ার দরকার ছিল না।" এই পরীক্ষার জন্য ৬ মাস আগে থেকে মালয়ালম ও অঙ্ক পড়তেন। অন্যান্য প্রবীন পড়ুয়াদের সাথে তিনি নিয়মিত অভ্যাস করতেন।

গত বছর প্রায় ৪৫ হাজার কেরেলার নাগরিক সাক্ষরতা মিশনের পরীক্ষায় বসেন। কাত্যায়নী আম্মা গত বছর জানুয়ারি মাসে সাক্ষরতা মিশনে নাম লেখান। একটি লিখিত পরীক্ষায় পাশ করে তিনি চতুর্থ শ্রেনীতে ভর্তি হন।

আম্মা এখন পরীক্ষার পর অবসর সময় কাটাচ্ছেন। পাশাপাশি একটি ইংরেজি বই পড়ার চেষ্টা করছেন। তিনি বলছেন, চতুর্থ শ্রেণীর ক্লাস শুরু হওয়ার আগে তিনি ভাল করে ইংরেজি পড়া শিখে নিতে চান। সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ রফিকুল ইসলাম সুজন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com