প্রত্যেক মানুষের তিনটি করে মা থাকে

প্রকাশের সময় : 2019-03-13 12:16:29 | প্রকাশক : Admin
প্রত্যেক মানুষের তিনটি করে মা থাকে

মুহম্মদ জাফর ইকবাল: আমাদের সেই বাংলাদেশ থেকে তোমাদের এই বাংলাদেশ কিন্তু অনেক ভিন্ন। আমি আমার ছাত্রজীবন শেষ করে যখন কর্মজীবনে প্রবেশ করি তখন আমাদের মাথাপিছু আয় ছিল মাত্র ১১০ ডলার। এখন তোমাদের মাথাপিছু আয় ১৭০০ ডলার থেকেও বেশি। (এটি কিন্তু যথেষ্ট নয়, ভিয়েতনাম আমাদের পরে আমাদের থেকে খারাপ অবস্থা থেকে শুরু করে আমাদের থেকে অনেক ভাল অবস্থায় পৌঁছে গেছে!)

যুক্তরাজ্যের প্রাইস ওয়াটার হাউস কুপারস তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে যে, সামনের বছরগুলোতে সারা পৃথিবীর যে তিনটি দেশ খুবই দ্রুতগতিতে প্রবৃদ্ধির হার বজায় রাখবে তার একটি হচ্ছে বাংলাদেশ! কাজেই এখন তোমাদের নতুন জীবনের স্বপ্ন দেখানো খুবই সহজ, আমার আলাদা করে তোমাদের কিছু বলতে হবে না, শুধু মনে করিয়ে দিতে হবে, ‘এটি তোমাদের বাংলাদেশ, তোমরা যেভাবে চাও সেভাবে এটিকে গড়ে তোলো!’

ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ একটি খুব সুন্দর কথা বলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন প্রত্যেক মানুষের তিনটি করে মা থাকে। একটি জন্মদাত্রী মা, একটি মাতৃভাষা এবং আরেকটি হচ্ছে মাতৃভূমি। এটি ফেব্র“য়ারি মাস, একুশে ফেব্র“য়ারি শুধু আমাদের নয়, এখন সারা পৃথিবীর মাতৃভাষা-দিবস। আমাদের মাতৃভাষাটি কতো মধুর সেটি জানতে চাও? খুব সহজ একটা উদাহরণ দিয়ে তোমাদের মনে করিয়ে দিতে পারি। আমাদের জাতীয় সঙ্গীতের প্রথম লাইনটি হচ্ছে, ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।’ এর শেষ তিনটি শব্দ দিয়েও একটি বাক্য হতে পারে, সেটি হচ্ছে, ‘আমি তোমায় ভালবাসি।’ এই তিনটি শব্দ দিয়ে পারমুটেশন করে সব মিলিয়ে আমরা ছয়ভাবে বাক্যটি লিখতে পারি :

আমি তোমায় ভালবাসি, আমি ভালবাসি তোমায়, তোমায় আমি ভালবাসি

তোমায় ভালবাসি আমি, ভালবাসি আমি তোমায়, ভালবাসি তোমায় আমি!

তোমরা কী লক্ষ্য করেছ, এই ছয়টি বাক্যের প্রতিটি কিন্তু শুদ্ধ বাক্য। এবারে ইংরেজীর সঙ্গে তুলনা করি; I Love you এটাকে কী অন্য কোনভাবে বলা সম্ভব I Love you? Love I you  কিংবা Love you I? কিংবা You I love? You love I?? চেষ্টা করে দেখ, মূল বাক্যটি ছাড়া অন্য কোনটি কিন্তু গ্রহণযোগ্য নয়! এই ছোট উদাহরণটি দিয়েই কিন্তু তোমরা বুঝতে পারবে, আমাদের মাতৃভাষা কত সাবলীল, কত ছন্দময়।

সে কারণে মনে হয় বাঙালী তরুণ-তরুণীদের মাঝে কবি সবচেয়ে বেশি! এ রকম অনেক উদাহরণ দেয়া সম্ভব। তোমরা নিজেরাই সেগুলো খুঁজে বের করতে পারবে। ইংরেজী ভাষার আগ্রাসনে আমরা যখন ব্যতিব্যস্ত, তখন ভাষার মাসে প্রিয় মাতৃভাষার জন্য কী আমরা একটুখানি ভালবাসা প্রকাশ করতে পারি না?

আমাদের আরেকজন মা হচ্ছে আমাদের মাতৃভূমি। তোমরা জান এই মাতৃভূমি কেউ এমনি এমনি আমাদের হাতে তুলে দেয়নি, অনেক মূল্য দিয়ে এটি আমাদের কিনতে হয়েছে। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার পর লন্ডন টাইমস লিখেছিল, ‘যদি রক্ত স্বাধীনতার মূল্য হয়ে থাকে তাহলে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ মূল্যে স্বাধীনতা কিনেছে।’ সেই মাতৃভূমি হচ্ছে আমাদের আরেকটি মা।

আমার জন্মদাত্রী মা যদি বৃদ্ধা হয়, অশিক্ষিতা হয়, অসুন্দর হয়, সাদাসিধে হয় তবুও তাকে ফেলে যে রকম একজন কম বয়সী স্মার্ট সুন্দরী মহিলাকে আমরা মা ডাকি না, দেশের বেলাতেও সে রকম। আমার দেশটি যদি দরিদ্র হয়, দুঃখী হয়, সাদাসিধে হয়, দুর্নীতিতে জর্জরিত হয়, তারপরও আমি আমার নিজের দেশ ছেড়ে আরেকজনের ঐশ্বর্যশালী, চকচকে, জৌলুসে ভরা একটি দেশকে নিজের মাতৃভূমি বলে গ্রহণ করে ফেলি না। আমাদের মায়েদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব আছে, আমরা কী নিজেদের জিজ্ঞেস করতে পারি, আমি কি আমার মায়ের সেই দায়িত্ব পালন করেছি? আমার জন্মদাত্রী মা, আমার মাতৃভাষা এবং দেশ মাতৃকা?

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com