সিদ্ধিরগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্র এ মাসেই উৎপাদনে

প্রকাশের সময় : 2019-09-26 11:59:04 | প্রকাশক : Administration

সিমেক ডেস্কঃ চুক্তির সাত বছর পর চলতি মাসেই ইলেক্ট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানি অব বাংলাদেশের (ইজিসিবি) সিদ্ধিরগঞ্জ ৩৩৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুত কেন্দ্র উৎপাদনে আসবে। গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুত কেন্দ্রটির স্টিম টারবাইন চলতি মাসেই উৎপাদনে আসছে।

রাষ্ট্রীয় কোম্পানিটি ২০১২ সালে গ্যাসচালিত বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণে ঠিকাদারের সঙ্গে চুক্তি করে। শুরুতে আইসোলেক্স এবং স্যামসাং যৌথভাবে কেন্দ্রটি নির্মাণের কার্যাদেশ পায়। কিন্তু ২০১৭ সালে আইসোলেক্স কেন্দ্রটিতে তাদের অংশীদারিত্ব ছেড়ে দিলে তা কিনে নেয় স্যামসাং। এরপর কেন্দ্রটি এককভাবে নির্মাণ করছে স্যামসাং। কেন্দ্রটির গ্যাস টারবাইন গতবছর মে মাসে উৎপাদনে আসে। এখন কেন্দ্রটির স্টিম টারবাইন উৎপাদনে আসছে। এতে একই জ্বালানি খরচে প্রায় দ্বিগুণ বিদ্যুত পাওয়া যাবে। সরকার ও বিশ্বব্যাংক যৌথভাবে কেন্দ্রটিতে বিনিয়োগ করেছে।বিদ্যুত, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সিদ্ধিরগঞ্জে কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তিনি বলেন, নিরাপদ বিদ্যুৎ কর্ম-পরিবেশ সৃষ্টির জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরঞ্জামাদির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করা জরুরী। এজন্য ৭০ হাজার শিক্ষিত-অর্ধশিক্ষিত বেকার তরুণ-তরুণীদেও বৈদ্যুতিক কর্ম পেশায় প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

কেন্দ্রটি পরিদর্শনের সময় চুক্তির সাত বছর পর কেন্দ্র উৎপাদনে আসার কারণ ব্যাখ্যা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রথম ঠিকাদার ছিল ইউরোপের। আর্থিক অবস্থা খারাপ থাকায় ওই ঠিকাদারের পক্ষে কাজ করা খুব কঠিন ছিল। পরে ঠিকাদার পরিবর্তন করা হয়। এতে দুই বছর বাড়তি সময় চলে যায়। ব্যয়ের বিষয়ে তিনি বলেন, ব্যয় বেশি হলেও এটি দেশের সর্বাধুনিক কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট। বর্তমানে গ্যাসের যে প্রেসার আছে তা ধরে রাখতে পারলে খুব সাশ্রয়ী দামে এখান থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে।

সিদ্ধিরগঞ্জে ৯ দশমিক ২৪ একর জমির ওপর নির্মিত তিন হাজার ৯৭১ কোটি টাকার এ প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের ঋণ দিয়েছে দুই হাজার ৯৪১ কোটি টাকা। সরকারের প্রকল্প বাস্তবায়নে ৫৪০ কোটি কোটি টাকা এবং ইজিসিবি নিজস্ব তহবিল থেকে বিনিয়োগ করেছে ৪৮৯ কোটি টাকা। এই কেন্দ্র প্রতি ইউনিটের দাম হবে দুই টাকা ৩২ পয়সা। ইজিসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক অরুণ কুমার সাহা বলেন, তিতাস গ্যাস তাদের গ্যাস সরবরাহের আশ্বাস দিয়েছে। পাইপ লাইনের কাজ চলছে। সেটি সম্পন্ন হলে এলএনজির সরবরাহ বাড়বে তখন গ্যাস দেয়া সম্ভব হবে।

কেন্দ্রটির ২১৮ মেগাওয়াটের গ্যাস টারবাইন (সিম্পল সাইকেল) ইউনিট ২০১৮ সালের মে মাসে বাণিজ্যিক উৎপাদনে যায়। এখন স্টিম টারবাইন (কম্বাইন্ড সাইকেল) ১১৭ মেগাওয়াট চালু হবে চলতি মাসের ১৫ তারিখেরে মধ্যে। এখন পরীক্ষামূলকভাবে যা চালিয়ে দেখা হচ্ছে।

 

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ সরদার মোঃ শাহীন,
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ রফিকুল ইসলাম সুজন,
বার্তা সম্পাদকঃ ফোয়ারা ইয়াছমিন,
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ আবু মুসা,
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিসঃ ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২,
উত্তরা, ঢাকা,
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com