রাজনীতির রঙ্গমঞ্চে পৃথিবী

রায়হান আহমেদ তপাদার: বিশ্বযুদ্ধের দিনগুলোতে বিশ্ব ও জাতীয় প্রেক্ষাপটে তেমন কোনো বিবেক জাগ্রত হয়নি। বরং দেশে দেশে বুদ্ধিজীবীরা স্ব-স্ব দেশের যুদ্ধবাজ শাসক ও শোষণকারীদের পক্ষে দাঁড়ায়।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ঔপনিবেশিক অবস্থার পতন, তৃতীয় বিশ্বের উদ্ভব, দেশে দেশে সাম্য- মৈত্রী- স্বাধীনতার জয়গান অনেক আশা ও স্বপ্নের জন্ম দিয়েছিল মানবজাতির মনে। নব্বইয়ের দশকের শুরুতে সোভিয়েত ইউনিয়নের নেতৃত্বে বিশ্ব সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থার পতন হয় এবং পূর্ব ইউরোপের মানচিত্র পাল্টে যায়। তখন আণবিক অস্ত্রে বলিয়ান হয়েও রাশিয়া বিশ্ব রাজনীতির রঙ্গমঞ্চ থেকে ছিটকে পড়ে। ফলে আমেরিকার নেতৃত্বে এককেন্দ্রিক বিশ্ব ব্যবস্থার সূচনা হয় এবং আমেরিকার প্রবল আধিপত্যের কালপর্বকেই স্থায়ী মনে হতে থাকে।

ভারতের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক ও সহযোগিতা বাড়তে থাকে এবং পাকিস্তানের সঙ্গে আমেরিকার টানাপড়েন শুরু। বাংলাদেশে গণআন্দোলনের ভেতর দিয়ে সামরিক স্বৈরাচারী ব্যবস্থার পতন ঘটে এবং সংসদীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়। পারমাণবিক শক্তিধর দেশ ভারত ও চীনের মধ্যে ভুটান সীমান্তে অস্ত্র প্রয়োগ না হলেও পাথর-যুদ্ধের ভেতর দিয়ে একটি পর্যায়ের পরিসমাপ্তি হয়েছে।

পারমাণবিকসহ মারণাস্ত্র উৎপাদন ও ক্রয়, অস্ত্রসজ্জা ইত্যাদি ক্রমেই বেড়ে চলেছে। বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্ব পরিস্থিতির কতই না পরিবর্তন হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের পর, একানব্বইতে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সামরিক শাসনের অবসান ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হওয়ার সময়ের আর বর্তমানের সময়ের বিশ্ব পরিস্থিতি একেবারেই একরকম নয়। বিশ্ব মানচিত্র ও ভারসাম্যের যেমন পরিবর্তন হয়েছে, তেমনি রাষ্ট্রসমূহের মধ্যে সম্পর্ক ও প্রভাব বলয়েরও পরিবর্তন ঘটে চলেছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সাড়ে তিন বছরের শাসনামলে নবজাত বাংলাদেশ সোভিয়েত-ভারত পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করে। কিন্তু পঁচাত্তরে হত্যা-ক্যুয়ের ভেতর দিয়ে ক্ষমতার পটপরিবর্তনের পর বাংলাদেশ কমবেশি আমেরিকা-চীন-পাকিস্তান অক্ষের দিকে ঝুঁকে থাকে। একটু খেয়াল করলেই দেখা যাবে, ওই সময়ের মতো এখনকার বিশ্ব পরিস্থিতি নয়। আমেরিকার আধিপত্যবাদী এককেন্দ্রিক বিশ্ব অপসৃত হয়েছে। বিশ্ব রঙ্গমঞ্চে পারমাণবিক শক্তিধর রাশিয়া আবারো আবির্ভূত হয়েছে এবং নিজ সীমান্তে প্রভাব অক্ষুণ্ন রাখা কিংবা প্রভাব বাড়াতে তৎপর থাকছে। তেল ও গ্যাসসমৃদ্ধ মধ্যপ্রাচ্য ও আশপাশের দেশগুলোতে নানাভাবে নানা রূপে যুদ্ধ ও সংঘাত লেগেই আছে। আ ......