ইসলামে বিবাহের গুরুত্ব

প্রকাশের সময় : 2020-10-28 11:42:14 | প্রকাশক : Administration
ইসলামে বিবাহের গুরুত্ব

মোহাম্মদ আবদুর রশিদঃ প্রথমেই সর্বশক্তিমান মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে লাখো কোটি শুকরিয়া আদায় করছি, যিনি আমাকে কলম ধরে কিছু লিখার তওফিক দিয়েছেন। অসংখ্য অগণিত দরুদ ও সালাম প্রেরণ করছি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট মহামানব বিশ্বমানবতার অগ্রদূত, বিশ্ব নবী মোহাম্মদ (সাঃ) এর প্রতি। আল্লাহ তায়ালা পৃথিবীকে একই পুরুষ নারীর মাধ্যম থেকে শুরু করে পর্যায়ক্রমে মানুষ সৃষ্টির ধারা অব্যাহত রেখেছেন। নারী পুরুষদের মধ্যে পারস্পারিক আকর্ষণ সৃষ্টি করে বিবাহের মাধ্যমে এ কাজটি সহজতর করে দিয়েছেন।

বিবাহ আমাদের নবী (সাঃ) এর একটি সুন্নত। তাফসিরে বিবাহ সম্পর্কে বলা হয়েছে, কারো জন্য ওয়াজিব, কারো জন্য সুন্নত এবং কারো জন্য নিষেধ। বর্তমানে সমাজে যাদের জন্য ওয়াজিব তারাই যেন নিষেধের আমলটাই বেশী করছে। আবার যাদের জন্য নিষেধ, তারাই যেন ওয়াজিব মনে করে বাল্য বিবাহের ব্যাপক প্রচলন করছে। ছেলে বিশ্ববিদ্যালয় পাশ করে বেকার এবং মেয়ের উচ্চতর ডিগ্রী নেওয়া হয় নাই এ অজুহাতে বিয়ে ওয়াজিব হওয়া শ্রেণীটি বিবাহ থেকে দূরে। ফলশ্রুতিতে দেশে জিনা- ব্যাভিচারের মতো জঘন্যতম পাপের প্রচলন যেন দিন দিন বেড়েই চলছে। মুসনাদে আহমাদে বর্নিত আছে, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) ওকাফ (রাঃ) কে জিজ্ঞেস করলেন,

‘তোমার স্ত্রী আছে?’

তিনি বললেন, ‘না’।

তোমার শরিয়ত সম্মত বাদী আছে ?

তিনি বললেন, ‘না’

তুমি কি আর্থিকভাবে স্বচ্ছল?

তিনি বললেন, ‘হ্যাঁ’।

তুমি কি বিবাহের প্রয়োজনীয় ব্যয় নির্বাহে সামর্থ্য রাখ?

তিনি বললেন, ‘হ্যাঁ’।

রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বললেন, তাহলে তুমি শয়তানের ভাই। তিনি আরও বললেন, ‘বিবাহ আমাদের সুন্নত। আমাদের মধ্যে সে ব্যক্তি নিষ্কিৃষ্টতম যে বিবাহহীন। তোমাদের মৃতদের মধ্যে সে সর্বাধিক নিচ, যে বিবাহ না করে মারা যায়। (মাযহারী)

ধর্ষণ/জিনা ব্যভিচার হতে থাকলে, ধর্ষক/ধর্ষিতার পরিবার, সমাজ এবং দেশের মধ্যে খোদায়ী গজব আসতে থাকবে। তবে ধর্ষিতা যদি মজলুম হয় তবে আল্লাহ তাকে সাহায্য করবে।

একবার এক যুবক মহানবী (সাঃ) নিকট এসে জিনা করার প্রতি তার আগ্রহ প্রকাশ করলো। মহানবী (সাঃ) শান্তভাবে তাকে বুঝালেন, তুমি কি চাও, কেউ তোমার মায়ের সাথে জিনা করুক, সে বলল আমার জান আপনার উপর কুরবান হউক, আমি কখনো এটা বরদাস্ত করবনা। এভাবে, তার বোন সহ নিকট আত্মীয়দর নাম বললে, সে তার তীব্র প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করল। মহানবী (সাঃ) বললেন সেইভাবে কোনো লোকই এ ধরনের কাজ বরদাস্ত করে না। তিনি যুবকটির বুকে হাত রেখে দোয়া করে দিলেন। যুবক বলল, এর পর থেকে জিনার চেয়ে নিকৃষ্ট আমার নিকট কোনো কাজ ছিলনা।

পবিত্র কোরআনের সূরা নূরের ৩২ নং আয়াতে আল্লাহ তায়ালা বিবাহিতদের জন্য সুসংবাদ দিয়েছেন, যারা ধর্মের হেফাজত এবং সুন্নতে রসুল পালন করার উদ্দেশ্যে বিবাহ করবে। আল্লাহ তায়ালা তাদেরকে আর্থিক স্বচ্ছলতা দান করবেন। হাদিসে এসেছে, হাশরের ময়দানে সমস্ত দায়িত্বশীলদেরকে তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে জবাবদিহী করতে হবে।

অতএব, স্বচ্ছল অভিবাকদের প্রতি আহবান, সন্তানদেরকে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার অজুহাত না দেখিয়ে যতটুকু সম্ভব দায়িত্ব নিয়ে বিবাহের ব্যবস্থা করা দরকার। আল্লাহ যেন আমাদের আমল করার তৌফিক দান করেন। আমিন।

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com