২০ মাসের মেয়ের জন্য বেঁচে গেল পাঁচজন

প্রকাশের সময় : 2021-02-03 16:24:06 | প্রকাশক : Administration
২০ মাসের মেয়ের জন্য বেঁচে গেল পাঁচজন

লম্বা জীবন পেয়েও আমরা অনেকেই পরোপকার করতে পারি না। কম সময়ে ধনিষ্ঠা যে এত বড় কাজ করে যাবে কে জানত! ছোট্ট মেয়ে ধনিষ্ঠার বয়স ছিল মাত্র ২০ মাস। অর্থাৎ, দুবছরও হয়নি। এই সময় তার বাবা, আত্মীয়-স্বজনদের কাঁধে-কোলে চড়ে ঘোরার কথা ছিল। কিন্তু দুর্ঘটনা যেন সব লন্ডভন্ড করে দিয়ে গেল। ছোট্ট ধনিষ্ঠাকে বাঁচানো যায়নি। তবে এত কম বয়সে সে যা করে গেল, উদাহরণ হয়ে থাকবে। এদেশে ধনিষ্ঠা সব থেকে কমবয়সী ঈধফধাবৎ ফড়হড়ৎ. ২০ মাসের মেয়ে মৃত্যুর আগে অঙ্গদান করে গেল। আর তাতে নতুন জীবন পেলেন পাঁচজন।

৮ জানুয়ারি বাড়ির দোতলার বারান্দায় খেলার সময় পা পিছলে নিচে পড়ে গিয়েছিল ধনিষ্ঠা। বেঁহুশ অবস্থায় প্রায় সঙ্গে সঙ্গে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা তাকে বাঁচানোর সবরকম চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। ১১ জানুয়ারি ডাক্তাররা ঘোষণা করেন, ধনিষ্ঠার ব্রেন ডেথ হয়েছে। তার মস্তিষ্ক কাজ না করলেও শরীরের অন্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলো সচল ছিল। মেয়েকে হারানো শোকের মাঝেও বাবা আশিস ও মা ববিতা ধনিষ্ঠার অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নেন। আশিস বলছিলেন, হাসপাতালে আসার পর দেখলাম কত মানুষ অসহায় অবস্থায় রয়েছে। অঙ্গদান করলে তাঁদের মধ্যে অনেককে বাঁচানো যেতে পারে। তাই এই সিদ্ধান্ত নিলাম। ধনিষ্ঠাকে তো আমরা হারিয়েই ফেলেছি। কয়েকজনকে বাঁচাতে পারলে তার থেকে ভাল আর কী হয়! - সূত্র: অনলাইন

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com