জোকস্

প্রকাশের সময় : 2021-04-15 12:17:59 | প্রকাশক : Administration
জোকস্

জোকস্

সংগ্রহে: ফেরদৌস আলম

 

একদিন শিক্ষক ক্লাসে পড়াচ্ছেন:

 

শিক্ষক: আচ্ছা, বলতে পারো দুধের সঙ্গে বিড়ালের কোনখানে মিল আছে?

ছাত্র: স্যার, এটা তো খুব সহজ প্রশ্ন।

শিক্ষক: তাহলে বলো।

ছাত্র: স্যার, দুটো থেকেই ‘ছানা’পাওয়া যায়।

 

নাম সংক্ষিপ্ত করার ফল:

 

এক ছাত্র তার বন্ধুকে চিৎকার করে ‘নিহা’বলে ডাকছে

শিক্ষক: এই নিরঞ্জন, তুমি নিহা বলে কাকে ডাকছ?

ছাত্র: আমার বন্ধুকে স্যার।

শিক্ষক: নিহা কোনো ছেলের নাম হতে পারে?

ছাত্র: না, মানে ওর আসল নাম নিরঞ্জন হালদার স্যার! আমরা সংক্ষেপে নিহা বলে ডাকি।

শিক্ষক: ভাগ্যিস তোদের কালে আমার জন্ম হয়নি। আমার নাম তো শান্তনু লাহিড়ী। তোরা তো তবে ‘শালা’বলে ডাকতি।

 

পাত্রপক্ষ জানলো মেয়ের বাবা পকেটমার:

 

হাদারামের মেয়েকে দেখতে এলো পাত্রপক্ষ। আর পাত্রপক্ষ এলেই মেয়েকে অনেক কিছু জিজ্ঞাসা করা হয়। হাদারামের মেয়েকেও জিজ্ঞাসা করল-

পাত্রপক্ষ: আচ্ছা মা, বল তো পৃথিবী ঘোরে কেন?

পাত্রী: পেটের জ্বালায়, এ জ্বালায় আমার বাবাও

পকেট মারে!

 

মেয়েরা স্বপ্নে রাজকুমার দেখে কেন:

 

ছেলে: মেয়েরা আসলেই লোভী।

মেয়ে: কেন?

ছেলে: যদি লোভী না হতো, তাহলে স্বপ্নে

রাজকুমার দেখে কেন?

মেয়ে: তাহলে কী দেখবে?

ছেলে: টোকাইও তো দেখতে পারতো।

 

সারাজীবন বসে খাওয়ার উপায়:

 

দাদু ক’দিন আগে ভারত গেলেন। আমি তখন গ্রামের বাড়িতে ছিলাম না। যখন গেলাম দাদুকে বললাম-

আমি: বুড়ো, আমার জন্য কী আনছো? আনো বা না আনো, আমাকে এখন দেওয়া লাগবে।

দাদু: ওরে পাগল, তোর জন্য কি না এনে পারি?

আমি: হইছে ভালোবাসা থাক। কী আনছো?

দাদু: এমন একটা জিনিস, যাতে তুই ক্যান তোর ছেলেপুলেও সারাজীবন বসে খাইতে পারবে।

আমি: কি জিনিস!

দাদু: এই নে প্লাস্টিক টুল!

 

যৌতুক চেয়ে বিপদে পড়লো বর:

 

এক যৌতুকলোভী বিয়ের জন্য মেয়ে দেখতে গেল। মেয়ে তার পছন্দ হলো। এরপর সে মেয়েকে বলল-

লোভী: আপনাকে তো আমার পছন্দ হয়েছে। কিন্তু আপনার বাবা কি আমার চাহিদা পূরণ করতে পারবেন?

মেয়ে: কী চাহিদা?

ছেলে: না মানে, আসলে চাহিদা আমার না। আপনি তার একমাত্র মেয়ে। আপনার খুশির জন্য একটা গাড়ি হলে ভালো হয়। উনি কি তা পারবেন?

মেয়ে: আমার বাবার তো বিমান দেওয়ার সামর্থ আছে। আপনার বাবার কি বিমানবন্দর বানানোর সামর্থ আছে?

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com