করোনার বিদায়ঘণ্টা

প্রকাশের সময় : 2022-03-23 09:53:25 | প্রকাশক : Administration
করোনার বিদায়ঘণ্টা

অপূর্ব কুমার: ওমিক্রনেই শেষ হতে চলেছে অতিমারী করোনা। দেশেও করোনায় মৃত্যু ও শনাক্তের হার নিচে নামছে। প্রতিদিনই কমছে নতুন রোগী শনাক্তের সংখ্যা। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ওমিক্রনের প্রভাবেই করোনা চূড়ায় পৌঁছার পর নিচে নামতে শুরু করেছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণাকেই সত্যি প্রমাণ করে গোটা বিশ্বেই এখন করোনা নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে।

আগামীতে করোনা থাকলেও হালকা ভাইরাসজনিত রোগে পরিণত হবে। যদি না আগামী তিন মাসের মধ্যে করোনার নতুন ধরনের রূপান্তর না ঘটে। বিশ্বে টিকাকরণের পরিধির প্রসারে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যাওয়া এবং করোনার সংক্রমণ ক্ষমতা কমে আসায় ভাইরাসটি দুর্বল হয়ে পড়েছে। তবুও বিশেষজ্ঞরা জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন।

করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা, আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু এবং নমুনা সংগ্রহের বিপরীতে করোনা শনাক্তের হার কমে যাওয়ায় বাংলাদেশে বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা হয়েছে। গত ২২ ফেব্র“য়ারি থেকে সরকার বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করে নেয়। এমনকি টিকা সনদ ছাড়া হোটেল- রেস্তোরাঁয় খাবার পরিবেশনের অনুমোদনও দেয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চালু, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারী-বেসরকারী সব প্রতিষ্ঠানই খুলে দেয়া হয়। সব কিছু স্বাভাবিক হওয়ায় জনগণের মধ্যেও করোনা ভীতি কেটে গেছে। সরকারের টিকা কর্মসূচী জোরদারের কারণে করোনা প্রতিরোধে বাংলাদেশ রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এখন পর্যন্ত প্রথম ডোজ দেয়া হয়েছে ১২ কোটি ৪২ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭৫ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হয়েছে ৮ কোটি ৪৩ লাখ ২৬ হাজার ২৩৪ জনকে। এখন পর্যন্ত বুস্টার ডোজ পেয়েছেন ৩৮ লাখ ৩ হাজার ১৪৭ জন।

এর আগে স¤প্রতি ইউরোপের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সি (ইএমএ) বলেছিল, করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ধরনটি যেভাবে ছড়াচ্ছে, তাতে মনে হচ্ছে করোনা মহামারী শেষ হতে চলেছে। তবে সাধারণ মানুষকে বারবার বুস্টার ডোজ দেয়ার মাধ্যমে মহামারী নিয়ন্ত্রণ টেকসই কোন কৌশল নয় বলেও সংস্থাটি মনে করে।

নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামভিত্তিক সংস্থাটির টিকা কৌশল বিভাগের প্রধান মারকো ক্যাভালেরি তথ্যানুযায়ী করোনা মহামারী কবে শেষ হবে, তা কেউই নির্দিষ্ট করে বলতে পারবে না। তবে সেটা দেখতে পাওয়া যাবে। মানুষের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং ওমিক্রন সংক্রমণের কারণে প্রচুর প্রাকৃতিক রোগ প্রতিরোধ সক্ষমতা গড়ে উঠবে। এখন করোনা মহামারী শেষের দিকে ধাবিত হবে। এর আগে মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসও ওমিক্রনকে মহামারী শেষের আভাস বলে দাবি করেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য বিশ্লেষণ অনুযায়ী, একদিনে দেশে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩০০ - ৫০০ জনের। আর একদিনে নমুনা সংগ্রহের বিপরীতে করোনা শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১.৫ শতাংশ। প্রতিনিয়তই করোনা শনাক্তের হার কমছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, কোন দেশে নমুনা সংগ্রহের বিপরীতে করোনা শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে মনে করা হয়ে থাকে। সেই হিসেবে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে।

গবেষণায় বলা যায়, তৃতীয় ঢেউয়ে বাংলাদেশে ওমিক্রনের প্রভাবেই করোনা আক্রান্ত বেশি হয়েছে। ফলে ওমিক্রনের প্রভাবেই দেশে বেশির ভাগের করোনা হয়েছে। সেই হিসেবে ধরেই নেয়া যায় ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে ওমিক্রনেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে উঠেছে।

ড. ডন মিল্টন বলেন, মানুষ ‘হার্ড রেজিসট্যান্স’-এর দিকে এগোচ্ছে। যে অবস্থায় ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া অব্যাহত থাকলেও কিন্তু মানুষের পর্যাপ্ত সুরক্ষা থাকবে। এর ফলে ভবিষ্যত সংক্রমণ সমাজের জন্য এখনকার মতো ব্যাঘাতমূলক হবে  না। অনেক বিজ্ঞানী মনে করেন, কোভিড-১৯ ফ্লু’র মতো রোগে পরিণত হতে পারে এবং মৌসুমি সংক্রমণ ছড়াবে কিন্তু তা খুব ব্যাপক হবে না। আপাতদৃষ্টিতে দেশের করোনা পরিস্থিতি দেখে বোঝা যাচ্ছে হার্ড ইমিউনিটি নয়, হার্ড রেজিসট্যান্সের দিকেই এগোচ্ছে দেশ।

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com