ভালবাসার বন্ধন ছিঁড়ল মৃত্যুতে

প্রকাশের সময় : 2022-04-20 11:19:24 | প্রকাশক : Administration
ভালবাসার বন্ধন ছিঁড়ল মৃত্যুতে

হাসপাতালের কেবিনে পড়েছিলেন বিয়ের লাল বেনারসি শাড়ি। দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার তাদের শুভ পরিণয় বাধা হতে পারেনি। নিশ্চিত মৃত্যু পথযাত্রী ফাহমিদাকে জীবনসঙ্গী করে নিয়েছিলেন মাহমুদুল। কিন্তু মাত্র বারো দিনের মাথায় হার মানলেন তিনি। তবে মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেও জয় হয়েছে ভালবাসারই।

মরণব্যাধি ক্যান্সার শেষ করে দিয়েছে অমর প্রেম রচনা করা ফাহমিদা ও মাহমুদুলের বন্ধন। দুরারোগ্য এ রোগকে তুচ্ছ করে তারা শুভ পরিণয়ে জড়িয়েছিলেন। মাহমুদুলকে রেখে ফাহমিদা চলে গেলেন পরপারে। লাল শাড়ি পড়া প্রেয়সীকে সাদা কাফনে সমাহিত করতে হচ্ছে কবরস্থানে, এ এক কঠিন বাস্তবতা। দুই পরিবারের এমন কঠিন দৃশ্য দেখে পাড়া প্রতিবেশীর চোখে অশ্রু। হাসপাতালের কক্ষে মৃত্যু যন্ত্রণাকে এড়িয়ে ফুলের মালাবদল করা দম্পতির একজন আরেকজনকে ছেড়ে পাড়ি জমানোর আগে থেকে ক্ষণগণনা চলছিল। মৃত্যু নিশ্চিত, তবে এমন বিদায় তো কেউ চায়নি। বিয়ের ১২ দিনের মাথায় হাসপাতালের আইসিইউতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে মাহমুদুলকে ছেড়ে চলে যান অন্য ভুবনে।

ফাহমিদার চাচা ইউসুফ সালাম জানিয়েছেন, শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় হাসপাতালের কেবিন থেকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে মারা যান। ২৬ বছর বয়সী এই তরুণীর ২০২১ সালে রেকটাম ক্যান্সার শনাক্ত হয়। ভারত বাংলাদেশে চিকিৎসা করেও তার উন্নতি হয়নি। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেমিক মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে ঘর বাঁধার স্বপ্ন ছিল। মাঝে বিষয়টি জানাজানি হয় দুই পরিবারের। কিন্তু ক্যান্সার শনাক্তের পরও মাহমুদুল ফাহমিদাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্তে অটল থাকে। অবশেষে তাদের বিয়ে হয় ৯ মার্চ।

বিশেষ করে লাল শাড়িতে ফাহমিদা ও পাঞ্জাবি পরিহিত বর মাহমুদুলের হাসপাতালে বিয়ের সেই ছবিটা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে। বেশিরভাগ মানুষই তাদের জন্য শুভ কামনা এবং ফাহমিদার আরোগ্য লাভের জন্য প্রার্থনা করে পোস্ট করেন। দক্ষিণ বাকলিয়ার চর চাক্তাইয়ের পারিবারিক কবরস্থানের ফাহমিদাকে দাফন করা হবে বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে পরদিনই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। তখন তাকে হাসপাতালে আবারও ভর্তি করা হয়। এতদিন কেবিনে চিকিৎসাধীন থাকলেও তাকে চট্টগ্রামের বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। আশা জমিয়েছিল সকলে, অন্তত ভালবাসার জয় হবে। কিন্তু যে জগতে নেই প্রাণ, কেউ এর আবেগ ও অনুভূতি নেই সেখান থেকে ফেরানো অসম্ভব। ফাহমিদার নশ্বর দেহ নিয়ে কবরস্থানের দিকে এগোতে থাকা স্বজনরাও বলছেন, ভালবাসার জয় হোক। এমন ভালবাসা এমন কঠিন প্রেম যুগ যুগ জীবিত থাকুক মানুষের অন্তরে।

প্রসঙ্গত, হাসপাতালের শয্যাতে কনেকে বেনারসি পড়িয়ে ১ টাকা কাবিনে বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয়েছিল ৯ মার্চ। মুখে থাকা অক্সিজেনের নল লাগানো কনের মুখ আর বরের ছবিটা দেখে যে কোন কঠিন হৃদয়ও আবেগের ফোয়ারায় উদ্বেলিত হয়। বাকলিয়ার ফাহমিদা আর চকরিয়া উপজেলার মাহমুদুলের এমন ঘটনা এই যুগে বিরল বলছেন পরিবারের সদস্যরা। - সূত্র: অনলাইন

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com