দাঁড়িয়ে গেছে থার্ড টার্মিনাল

প্রকাশের সময় : 2022-05-11 15:11:21 | প্রকাশক : Administration
দাঁড়িয়ে গেছে থার্ড টার্মিনাল

আজাদ সুলায়মান: করোনার ভয়ঙ্কর তান্ডবে যখন গোটা পৃথিবী থমকে গিয়েছিল, লকডাউনের বিধিনিষেধে যখন গোটা দেশের মানুষ ঘরবন্দী, তখনও একদল লোক দিবারাত্রি কাজ করে গেছেন। করোনা ভীতি তাদের রুখতে পারেনি। কি শ্রমিক, কি কর্তা বাবু কিংবা দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ সবাই কাজ করেছেন আপন মনে। এভাবেই কাজ এগিয়ে নেয়া হয়েছে থার্ড টার্মিনালের।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বিমান প্রতিমন্ত্রী, বেবিচক চেয়ারম্যান ও প্রকৌশলীরা করোনা ভীতি উপেক্ষা করে রাতদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে প্রকল্পকে নিয়ে গেছেন নির্দিষ্ট গতিসীমার বাইরে। বিরুদ্ধ পরিবেশেও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে গেছে থার্ড টার্মিনাল। প্রকল্পের হিসাবে যা বলা চলে সাড়ে ৩৪ শতাংশ। যেভাবে কাজ এগিয়ে গেছে তাতে চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে হয়ে যাবে আরও প্রায় বিশ শতাংশ কাজ। তাতে এ বছরের মধ্যে থার্ড টার্মিনালের কাজ শেষ হবে কমপক্ষে ৫০ শতাংশ।

এখন পর্যন্ত নির্মাণকাজ প্রত্যাশিত লক্ষ্যের চেয়ে ১ দশমিক ৯ শতাংশ এগিয়ে আছে। ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর নাগাদ থার্ড টার্মিনাল উদ্বোধন করা সম্ভব হবে। করোনার মধ্যে শাহজালাল বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের নির্মাণকাজ একদিনের জন্যও বন্ধ হয়নি। তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণকাজ শেষ হলে অবকাঠামোগত যে সীমাবদ্ধতা আছে, তা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে।

এমাসে শেষ হয়েছে ৩৪ দশমিক ৬ শতাংশ কাজ। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ হবে। এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে কাজটি কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হবে। তখন এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে টার্মিনালকে যুক্ত করতে হবে। আশকোনা হজ্জ ক্যাম্প পর্যন্ত সম্প্রসারণ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণকাজ সব সিডিউল অনুযায়ী হচ্ছে।

কঠিন কাজ শেষ হয়ে গেছে। ভূপৃষ্ঠ থেকে ৭০ ফুট পর্যন্ত সুউচ্চতার এই টার্মিনালের অনেকাংশই উঠে গেছে। এখন বাকি কাজ খুব দ্রুত শেষ হবে। কেননা কঠিন, জটিল ও সময় সাপেক্ষের সব কাজ শেষ হয়ে গেছে। এখন একই সঙ্গে কাজ চলছে টার্মিনাল নির্মাণের ও ইকুইপমেন্টের ইনস্টলেশনের কাজ। অর্থাৎ দ্বিগুণ গতি আসবে কাজে। সে হিসাবে আগামী বছরের শেষের দিক অর্থাৎ সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে এটা উদ্বোধন করা সম্ভব হবে।

বিমানবন্দরে রানওয়ে একটি। তাই উড়োজাহাজ রানওয়েতে থাকার স্থায়িত্ব যাতে কম হয়, দ্রুততার সঙ্গে যেন তা পার্ক করতে পারে, এ জন্য দুটি অতিরিক্ত হাইস্পিড ট্যাক্সিওয়ের নির্মাণকাজ হাতে নেয়া হয়েছে। শাহজালাল বিমানবন্দরের নতুন রাডার স্থাপনের কাজ শুরু হয়ে গেছে।

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে কাজটি কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হবে। তখন এক্সপ্রেসওয়ের সঙ্গে টার্মিনালকে যুক্ত করতে হবে। আশকোনা হজ্জ ক্যাম্প পর্যন্ত সম্প্রসারণ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণকাজ সব সিডিউল অনুযায়ী হচ্ছে। কেবল কাজে দেরি হচ্ছে, যেহেতু ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ একটু বিলম্বে শুরু হচ্ছে।

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com