জোকস্

প্রকাশের সময় : 2022-11-09 12:05:58 | প্রকাশক : Administration
জোকস্

জোকস্

সংগ্রহে: ইসমাইল হোসেন

 

বাঙালির কদর:

 

গুপ্তচর: জন্ম থেকে গুজব শুনতে শুনতে কোনটা মিথ্যা আর কোনটা রিয়েল বুঝে গেছি। এইগুলা ব্যাপার না।

সিআইএ: হু আর ইউ রিয়েললি? তোমার রহস্য উদঘাটন না করতে পারলে আমি আফসোসেই মরে যাবো।

গুপ্তচর: আমি সাধারণ বাংলাদেশি। যাকে তোমরা গুপ্তচর ভেবে ভুল করেছো।

সিআইএ: ফিল আপ দিস ফর্ম, ভেরি কুইকলি।

গুপ্তচর: কিসের ফর্ম এটা?

সিআইএ: তোমাকে আজ থেকে সিআইএ’র ট্রেইনার হিসেবে নিয়োগ দিতে চাই। এমন লোকই তো আমরা খুঁজেছিলাম। আই স্যালিউট ইউ, বস!

 

পড়াশোনার খরচ বাঁচানোর উপায়:

 

বাবা: জানিস, তোর পড়ালেখার পিছনে আমার কত খরচ হয়?

ছেলে: হ্যাঁ বাবা, জানি বলেই তো কম কম পড়ালেখা করে তোমার খরচ কমানোর চেষ্টা করি।

 

স্ত্রী রাগ করলে স্বামীর সুবিধা:

 

রফিকের স্ত্রী রাগ করে বাপের বাড়ি চলে গেছে। কিন্তু রফিক নাছোড়বান্দা। প্রতিদিন একবার করে ফোন দেয়। স্বামীর ফোন পেয়ে স্ত্রী বললো

স্ত্রী: কতবার বলব যে, আমি আর বাপের বাড়ি থেকে তোমার বাড়ি যাবো না। তবুও কেন প্রতিদিন ফোন করো?

রফিক: প্রতিদিন ভয় পাই, যদি সিদ্ধান্ত

পাল্টাও। তাই ফোন করে নিশ্চিত হয়ে নেই।

 

লোডশেডিংয়েও বই পড়া যায়:

 

সকালে চায়ের টেবিলে একখানা ডিটেকটিভ বই ফেলে দিয়ে স্বামী স্ত্রীকে বললো

স্বামী: দারুণ বই। আমি কাল রাত দুটা পর্যন্ত এক নিঃশ্বাসে পড়ে শেষ করেছি।

স্ত্রী: কিন্তু কাল বারোটার পর যে লোডশেডিং হলো, পড়লে কি করে?

স্বামী: পড়তে পড়তে এতই মগ্ন ছিলাম যে, কিছুই টের পাইনি।

 

স্কুলে দুষ্টু ছেলের কাণ্ড:

 

পিপলু একদম বজ্জাতের হাড্ডি। রোজ স্কুল থেকে অভিযোগ আসে। আর তা শুনে শুনে ছেলেটির মা-ও সাজা দিতে ভুল করেন না। একদিন মা বললেন

মা: কিরে পিপলু, কান ধরে দাঁড়িয়ে আছিস কেন, বাবা?

পিপলু: মা তুমিই তো বললে স্কুলে কি কি করেছিস দেখা।

 

টেলিভিশন ছাড়া সব চুরি:

 

দীননাথ পুলিশের কাছে গিয়ে নালিশ করল

দীননাথ: স্যার, কাল রাতে টেলিভিশনটা ছাড়া আমার বাসার সব কিছু চুরি হয়ে গেছে।

পুলিশ: তা চোর মহাশয় সব নিলো কিন্তু টেলিভিশনটা নিলো না কেন?

কাশিনাথ: ওটা আর চুরি করবে কিভাবে বলেন? আমি তো তখন বসে বসে টেলিভিশনে অনুষ্ঠান দেখছিলাম!

 

সম্পাদক ও প্রকাশক: সরদার মোঃ শাহীন
উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম সুজন
বার্তা সম্পাদক: ফোয়ারা ইয়াছমিন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: আবু মুসা
সহ: সম্পাদক: মোঃ শামছুজ্জামান

প্রকাশক কর্তৃক সিমেক ফাউন্ডেশন এর পক্ষে
বিএস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড,
ওয়ারী, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত।

বানিজ্যিক অফিস: ৫৫, শোনিম টাওয়ার,
শাহ মখ্দুম এ্যাভিনিউ, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
বার্তা বিভাগ: বাড়ি # ৩৩, রোড # ১৫, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন: ০১৯১২৫২২০১৭, ৮৮০-২-৭৯১২৯২১
Email: simecnews@gmail.com